বিপদ-আপদ থেকে রক্ষা পাওয়ার ৫ দোয়া!

Loading...

মানুষের উপকার হয় ও বিপদ-আপদ থেকে রক্ষা পাওয়া যায়- এমন অনেক দোয়া পবিত্র কোরআন ও হাদিসে বর্ণিত হয়েছে। আর এ দোয়াগুলো খুবই ছোট, যা সহজে মুখস্থ ও আমল করা যায়। নিম্নে ৫টি দোয়া পেশ করা হলো-

(১) সব ধরনের অনিষ্টতা থেকে হেফাজতের দোয়া: হজরত ওসমান (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, প্রত্যেহ সকালে ও সন্ধ্যায় তিনবার করে এই দোয়াটি পাঠ করলে কোনো কিছুই তার ক্ষতি করতে পারবে না।

দোয়া: বিসমিল্লাহিল্লাজী লা ইয়াদুররু মায়াসমিহি শাইয়ুন ফিল আরদি, ওয়ালা ফিস-সামায়ি ওয়া হুয়াস সামিউল আলীম।

অর্থ: আল্লাহর নামে, যার নামের বরকতে আসমান ও জমিনের কোনো কিছুই কোনো ক্ষতি করতে পারে না, তিনি সর্বশ্রোতা ও সর্বজ্ঞ। -তিরমিজি ও আবু দাউদ

(২) কোনো সম্প্রদায় থেকে ক্ষতির আশংকা হলে দোয়া: হজরত আবু মুসা আশআরি (রা.) থেকে বর্ণিত, নবী করিম (সা.) যখন কোনো সম্প্রদায় দ্বারা ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ার আশংকা করতেন তখন বলতেন—

দোয়া: আল্লাহুম্মা ইন্না নাজআলুকা ফী নুহুরিহীম, ওয়া নাউজুবিকা মিন শুরুরিহীম।

অর্থ: হে আল্লাহ! আমরা তোমাকেই তাদের মুখোমুখি করছি এবং তাদের অনিষ্টতা থেকে তোমারই কাছে আশ্রয় চাচ্ছি। (আবু দাউদ ও নাসাই)

(৩) বিপদ-মসিবতের সময় পাঠ করার দোয়া: হজরত উম্মে সালমা (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি হজরত রাসূলুল্লাহ (সা.)-কে বলতে শুনেছি, মানুষের ওপর কোনো বিপদ এলে সে যদি এই দোয়া পাঠ করে- আল্লাহ তায়ালা তাকে তার বিপদের প্রতিদান দেন এবং সে যা কিছু হারিয়েছে তার বদলে তার চেয়ে উত্তম কিছু দান করেন।

দোয়া: ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন, আল্লাহুম্মা আজিরনী ফী মুসিবাতী ওয়া আখলিফ-লী খাইরাম মিনহা।

অর্থ: আমরা আল্লাহর জন্য এবং আমাদেরকে তারই দিকে ফিরে যেতে হবে। হে আল্লাহ! বিপদে আমাকে সওয়াব দান করুন এবং যা হারিয়েছি তার বদলে তার চেয়ে ভালো কিছু দান করুন। (সহিহ মুসলিম)

(৪) বিপদের সময় পাঠ করার দোয়া: হজরত ইবনে আব্বাস (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, হজরত রাসূলুল্লাহ (সা.) বিপদের সময় এই দোয়াটি পাঠ করতেন—

দোয়া: লা ইলাহা ইল্লাল্লাহুল হালীমুল হাকীম, লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু রাব্বুল আরশিল আজীম, লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু রাব্বুস সামাওয়াতি ওয়াল আরদি- ওয়া রাব্বুল আরশিল কারীম।

অর্থ: আল্লাহ ব্যতীত কোনো উপাস্য নেই, তিনি পরম সহিষ্ণু ও মহাজ্ঞানী। আল্লাহ ব্যতীত কোনো উপাস্য নেই, তিনি মহান আরশের প্রভু। আল্লাহ ব্যতীত কোনো উপাস্য নেই, তিনি আকাশমন্ডলী, জমিন ও মহাসম্মানিত আরশের প্রভু। (সহিহ বোখারি ও মুসলিম)

(৫) ঋণ মুক্তির দোয়া: হজরত আলী (রা.) থেকে বর্ণিত, এক চুক্তিবদ্ধ দাস তার কাছে এসে বলে, আমি আমার চুক্তির অর্থ পরিশোধে অপারগ হয়ে পড়েছি। আপনি আমাকে সাহায্য করুন। তিনি বলেন, আমি তোমাকে এমন একটি বাক্য শিখিয়ে দিব যা আমাকে হজরত রাসূলুল্লাহ (সা.) শিখিয়েছিলেন। যদি তোমার ওপর পর্বত পরিমাণ দেনাও থাকে তবে আল্লাহ তায়ালা তোমাকে তা পরিশোধের ব্যবস্থা করে দিবেন। তিনি বলেন, তুমি পাঠ করবে—

দোয়া: আল্লাহুম্মাকফিনী বিহালালিকা আন হারামিকা, ওয়া আগনিনী বিফাদলীকা আম্মান সিওয়াক।

অর্থ: হে আল্লাহ! তোমার হালাল দ্বারা আমাকে তোমার হারাম থেকে দূরে রাখ এবং তোমার দয়ায় তুমি ভিন্ন অপরের মুখাপেক্ষি হওয়া থেকে স্বনির্ভর কর। (তিরমিজি ও বায়হাকি)

ইংরেজি গানের সঙ্গে রাস্তায় বৃদ্ধার উদ্দাম নাচ! ভিডিও ভাইরাল!

রাস্তায় ইংরেজি গান বাজছে৷ সেই গানের তালে তালে রাস্তায় নাচছেন বৃদ্ধা! কোনও রকম লোকলজ্জার ভয় নেই৷ নেই বয়সের তোয়াক্কা৷ একেবারে মন দিয়ে নেচে চলছেন তিনি৷ নিজের জন্য, কারণ এইভাবে নিজেকে আনন্দ দিচ্ছেন তিনি৷ এই বয়সে তার এমন নাচ দেখে আশেপাশের মানুষও হচ্ছেন মুগ্ধ৷

কোনও এক অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তি বৃদ্ধার এই নাচ করেছেন রেকর্ড৷ তারপর সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড হতেই নিমেষে ভাইরাল৷

তবে এই ঘটনা ঘটেছে বিদেশের মাটিতে৷ বৃদ্ধার পরনে ড্রেস৷ মূলত ট্যাপ ডান্সের স্টেপে গোটা নাচটি করেছেন এই মহিলা৷ অনেকে এই নাচের সঙ্গে হিন্দি ছবির একটি গানের মিল পাবেন৷ গানটি হল সেনোরিটা!

This is amazing!

This is amazing!

Gepostet von Tree designs am Freitag, 30. August 2019

জোকারকে নিয়ে হাসবেন না…

বিশ্ব চলচ্চিত্রে এই মুহূর্তে যে নামটি সবচেয়ে বেশি আলোচিত হচ্ছে, সেটি হলো ‘জোকার’। বাংলাদেশে গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় প্রথম দেখা দেন জোকার, জোকিন ফিনিক্স। স্টার সিনেপ্লেক্সে ‘জোকার’ ছবির প্রিমিয়ার শোতে। এর আগে জোকার চরিত্রটি জীবিত হয়েছে হিথ লেজার, জ্যাক নিকলসন, জেরার লেটো, সিজার রোমেরোদের মতো মেধাবী অভিনয়শিল্পীদের শরীরে। এবার সেই তালিকায় যুক্ত হলেন জোকিন ফিনিক্স।

জোকারের মুক্তি
ভেনিস আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে গত ৩১ আগস্ট ‘জোকার’ ছবির ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হয়। আর ছবি শেষ হওয়ার পর করতালি যেন থামছিল না। আট মিনিট ধরে ‘স্ট্যান্ডিং অভিশন’ পায় জোকার। আর পায় ৭৮তম ভেনিস চলচ্চিত্র উৎসবের সেরা ছবি ‘গোল্ডেন লায়ন’ পুরস্কার। এরপর ৯ সেপ্টেম্বর টরন্টো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে দেখানো হয় ছবিটি। আজ ৪ অক্টোবর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে মুক্তি পায় ছবিটি। বাংলাদেশেও স্টার সিনেপ্লেক্সে আজ শুক্রবার থেকে দেখা যাবে ছবিটি।

জোকিন ফিনিক্স কেমন জোকার?
এবার জোকার হয়েছেন অস্কারে মনোনয়ন পাওয়া অভিনেতা জোকিন ফিনিক্স। পরিচালনা করেছেন অস্কারে মনোনয়ন পাওয়া পরিচালক টড ফিলিপস। আর গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন অস্কারজয়ী অভিনেতা রবার্ট ডি নিরো। ‘জোকার’ ছবি নিয়ে যখন চারদিকে সমালোচনা, তখন রবার্ট ডি নিরো বললেন, এই ছবিতে দুর্দান্ত অভিনয় করেছেন জোকিন ফিনিক্স। আর আরেক অভিনয়শিল্পী জ্যাজি বিৎস বলেছেন, জোকিনের সঙ্গে পর্দা ভাগ করা তাঁর জন্য অত্যন্ত সম্মানের।

কেন জোকিন জোকার হলেন?
এই চরিত্রের জন্য প্রথমে অস্কারজয়ী অভিনেতা লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিওকে ভাবা হয়। কিন্তু জোকিন ফিনিক্সকে নাকি শুরু থেকেই টানত এই ‘ডার্ক’ চরিত্র। আর্থার ফ্লেককে (জোকার) নাকি তাঁর খুব আপন বলে মনে হতো। এক সাক্ষাৎকারে ৪৪ বছর বয়সী এই অভিনেতা বলেন, ‘পড়তে পড়তে বা বড় পর্দায় দেখতে দেখতে আমার মনে হতো, আমি যেন জোকারকে বুঝতে পারছি। এরপর সে কী করবে, তা যেন আমি ধরতে পারছি।’ আবার পরিচালকও এই অভিনেতার ভেতর জোকারকে খুঁজে পেয়েছিলেন। তিনি বলেন, ‘জোকারকে যেমন আগে থেকে অনুমান করা যায় না, জোকিনের ক্ষেত্রেও তাই।’

ভিডিওটি দেখুন

জোকিনের জোকার হয়ে ওঠা
জোকিন ফিনিক্স জোকার হওয়ার জন্য ২৪ কেজি (৫২ পাউন্ড) ওজন ঝরিয়েছেন। দ্য নিউইয়র্ক পোস্টের মতে, একদম অন্যরকম জোকার হওয়ার জন্য তিনি সম্ভব সবকিছুই করেছেন। প্যাথলজিক্যাল লাফটার বা মানসিকভাবে বিকারগ্রস্তদের মতো অস্বাভাবিক হাসি শেখার জন্য তিনি দিনের পর দিন সত্যিকারের সাইকোপ্যাথদের হাসির ভিডিও দেখেছেন। তাঁদের সঙ্গে মিশেছেন, কাছ থেকে পর্যবেক্ষণ করেছেন। আর সিরিয়াল কিলারদের নিয়ে লেখা অসংখ্য সাহিত্য পড়েছেন। ওই চরিত্রদের মনোজগৎ কীভাবে কাজ করে, তা বুঝতে চেষ্টা করেছেন। বই অর্ধেক পড়ে বাকিটা নিজে নিজে ভেবে পরে মিলিয়ে দেখেছেন। তাঁরা কেন এই হত্যাকাণ্ডগুলো করছে, তা বোঝার চেষ্টা করেছেন।

‘জোকার’ ছবি
দুই ঘণ্টা এক মিনিটের ছবি ‘জোকার’। ১৯৮১ সালের প্রেক্ষাপটে নির্মিত। যাকে বলে ‘ওয়ান ম্যান শো’। ‘দ্য ডার্ক নাইট’ ছবির জোকার হিথ লেজারের সঙ্গে ফিনিক্সকে মেলানো যাবে না। প্রায় প্রতিটি দৃশ্যে তাঁর উপস্থিতি। এটি একজন ব্যর্থ মাতৃভক্ত কমেডিয়ানের হিংস্র সিরিয়াল কিলার হয়ে ওঠার গল্প। এর আগে একজন সাইকোপ্যাথের এত শক্তিশালী চরিত্রায়ণ খুব কম হয়েছে। সবাই তাঁকে অগ্রাহ্য ও কমবেশি হাসাহাসি করায় নিজের অস্তিত্বের জানান দিতে পাগল হয়ে ওঠে জন্মপরিচয়হীন জোকার। তাঁর কমেডি দেখে মানুষ হাসেনি, হেসেছে তাঁকে নিয়ে। ক্ষুব্ধ, অবহেলিত জোকার একসময় শহরের সবচেয়ে ভীতিকর খুনি হয়ে ওঠে। জোকারের হত্যার সঙ্গে যেভাবে ধনীবিরোধী আন্দোলনকে মেলানো হয়, তা অযৌক্তিক। তাই সে বলে, ‘হ্যাঁ, আমি আছি।’ সিনেমায় একের পর এক ঘটনা ঘটতে থাকে। কিন্তু এর কোনোটিই সম্ভবত আপনি আগে থেকে অনুমান করতে পারবেন না। অর্ধেক দৃশ্য আর অর্ধেক শব্দ মিলে নাকি চলচ্চিত্র। সঙ্গে এই ছবির শতকরা ৬০ ভাগ ব্যাকগ্রাউন্ড স্কোর আর মিউজিক। সাসপেন্স তৈরি করা ও ধরে রাখাতে ব্যাকগ্রাউন্ড স্কোর অত্যন্ত শক্তিশালী ভূমিকা রেখেছে। আর বাকিটা জোকিন ফিনিক্সের অভিনয়। জোকার চরিত্রে হিথ লেজারকে যেমন মানুষ মনে রাখতে বাধ্য, জোকিনকেও ভোলা কঠিন হবে। তবে হ্যাঁ, নৃশংস হত্যার দৃশ্য দেখে হলের ভেতর যেভাবে মানুষ হাততালি দিয়ে উঠেছে, সেটা অবশ্যই ভীতিজনক। তাই এই ছবি যে এ ধরনের হত্যাকাণ্ডের জন্য সবার সমর্থন পাওয়ার জন্য পরোক্ষ ভূমিকা রাখবে, তা বলাই বাহুল্য।

‘জোকার’ নিয়ে যত সমালোচনা
দ্য গার্ডিয়ান ইতিমধ্যে জোকারকে বছরের সবচেয়ে হতাশাজনক ছবি বলে আখ্যায়িত করেছে। বলা হয়েছে, এই ছবির গল্প বাজে এবং ম্যাড়মেড়ে। ছবিটি ভেনিসের সেরা ছবি হওয়ায় নিউইয়র্ক পোস্ট ছবির রিভিউয়ে লিখেছে, ‘তুমি কি আমার সঙ্গে মজা করছ?’ সব মিলিয়ে, বিষয়বস্তুর দিক থেকে ছবিটাকে খুবই কম নম্বর দিয়েছেন সমালোচকেরা। উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বলেছেন, ‘এই ছবির ফলস্বরূপ গান কিলিং বেড়ে যেতে পারে। আইন শৃঙ্খলার অবনতি ঘটতে পারে।’ একজন সিরিয়াল কিলারকে হিরোর আসনে বসানো হয়েছে, তাঁর খুনকে সমর্থন করা হয়েছে বলেও অভিযোগ এসেছে। এমনকি ২৮ সেপ্টেম্বর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এই ছবির প্রিমিয়ারের দিন পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছিল। এই ছবিতে নৃশংসভাবে হত্যার দৃশ্য আছে। যা দেখলে মানুষের মনোজগতে যে পরিবর্তন আসবে, সেটি মোটেও ইতিবাচক নয়। ট্রল, প্রতিহিংসার অস্থির সময়ে এই ছবি অস্থিরতা আরও বাড়াবে। সেটা শরীরের ভেতর থেকে বাইরে বেরিয়ে পড়া অস্বাভাবিক নয়। শিশুকে নিয়ে এই ছবি দেখা ঠিক হবে না।

মিথিলার সঙ্গে ফের সংসার শুরু করা নিয়ে মুখ খুললেন তাহসান!

শোবিজের আদর্শ দম্পতি বলা হতো সংগীতশিল্পী তাহসান খান ও মডেল-অভিনেত্রী মিথিলাকে। ২০০৬ সালের ৬ আগস্ট বিয়ে করেন তারা। তারপর থেকে সুখে শান্তিতেই বসবাস করে আসছিলেন। তাদের সেই সংসারে এক কন্যা সন্তানও রয়েছে। নাম আইরা তাহরিম খান।

সব দেখে বলা হতো তারকাদের ঠুনকো দাম্পত্য জীবনের বিপরীতে তাহসান-মিথিলা দারুণ উদাহরণ। কিন্তু ভক্তদের মন খারাপ করিয়ে ২০১৭ সালের ২০ জুলাই আনুষ্ঠানিকভাবে বিচ্ছেদের ঘোষণা দেন দুই তারকা।

সম্প্রতি তাদের একটি ছবি নিয়ে নতুন করে গুঞ্জন ছড়িয়েছে, সাবেক স্ত্রীকে নিয়ে নাকি তিনি নতুন করে সংসার শুরু করতে চলেছেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া সে ছবিতে আরো দেখা যায়, তারা দুজনই নিউ ইয়র্কে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। ডিভোর্সের পর তাদের এমন ছবি দেখে মিডিয়া পাড়া এখন সরগরম তাদের সংসার পাতার খবরে।

তবে এমন খবরের সত্যতা কতটুকু? এমন প্রশ্নের জবাবে সংগীতশিল্পী তাহসান বলেন, এই খবরের কোনো ভিত্তি নেই। এটা শুধুই গুঞ্জন। এরকম কোনো কিছুই ঘটেনি, ঘটবেও না। আমি ও মিথিলা শুরু থেকেই হেলদি কো-পেরেন্টিংয়ে মনোযোগী ছিলাম। এর জন্য একটা বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক জরুরি। আমাদের মধ্যে সেটাই রয়েছে। এর বেশি কিছুই না।

তিনি আরো বলেন, এটা সত্য আমরা দুজনই আমাদের মেয়েকে নিয়ে ঘুরতে যুক্তরাষ্ট্রে গিয়েছি। কিন্তু দেখা গেছে, আমি আমার মেয়েকে নিয়ে ফ্লোরিডার ডিজনিল্যান্ডে ছিলাম, আর সে ছিল নিউ ইয়র্কে। এমন করেই সফরটা গেছে আমাদের। তবে মেয়ের সঙ্গে খুব সুন্দর লম্বা সময় পার করেছি। এটা আমার জন্য অনেক উপভোগ্য ছিল। ভালো একটা সময় কাটিয়ে এবার কাজে মনোযোগী হতে পারবো।

বিপুল ভোটে বাবার আসনে পুত্রের জয়!

এরশাদের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া রংপুর-৩ (সদর) আসনের উপনির্বাচনে জয় পেয়েছেন ছেলে সাদ এরশাদ। আজ (৫ অক্টোবর) শনিবার রাতে ভোট গণনা শেষে দেখা যায় বিপুল ভোটে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন সাদ।

এদিকে সবগুলো কেন্দ্রের (১৭৫) ফলাফলে দেখা গেছে, লাঙল প্রতীকের জাতীয় পার্টির প্রার্থী সাদ এরশাদ পেয়েছেন ৫৮,৮৭৮ভোট।

তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির ধানের শীষের প্রার্থী রিটা রহমান পেয়েছেন ১৬,৯৪৭ ভোট। স্বতন্ত্র প্রাথী এরশাদের ভাতিজা শাহরিয়ার আসিফ (মটরগাড়ি) পেয়েছেন ১৪,৯৮৪ ভোট।

আজ শনিবার বিকেল ৫টায় ভোটগ্রহণ শেষ হয়। এর আগে সকাল ৯টা থেকে একসঙ্গে ইভিএম পদ্ধতিতে ১৭৫টি কেন্দ্রের এক হাজার ২৩টি গোপনকক্ষে ভোটগ্রহণ শুরু হয়।

এদিকে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের ৯ থেকে ৩৩ নং ওয়ার্ড এবং সদর উপজেলার ৫টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত রংপুর-৩ আসন। এখানে মোট ভোটার চার লাখ ৪১ হাজার ২২৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ দুই লাখ ২০ হাজার ৮২৩ এবং নারী ভোটার দুই লাখ ২০ হাজার ৪০১ জন।

নিচের ভিডিওটি মিস করেন নি তো?
লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন