প্রাচীর টপকে বাড়িতে ঢুকে প্রবাসীর স্ত্রীকে জাপটে ধরে শামীম

নিউজ ডেস্ক
  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ৯ জুন, ২০২২
  • ১১৭ বার পাঠিত

দীর্ঘদিন ধরে প্রবাসীর স্ত্রীর প্রতি ভিন্ন দৃষ্টি ছিল শামীমের। স্বামী প্রবাসে থাকায় ছিল সুযোগের অপেক্ষায়। এক সকালে বাড়িতে কেউ ছিল না, ঘরের কাজ করছিলেন ঐ গৃহবধূ। সেই সুযোগে বাড়ির প্রাচীর টপকে ভেতরে ঢুকেই গৃহবধূকে জাপটে ধরে ধর্ষণচেষ্টা করে শামীম। নিজেকে রক্ষা করতে ঐ গৃহবধূর শুরু করেন চিৎকার। তার চিৎকারে লোকজন এগিয়ে আসার আগেই সটকে পড়ে শামীম।

ঘটনার পর পরই অভিযোগ দিতে শামীমের বাড়িতে যান ঐ প্রবাসীর স্ত্রী। সেখানে বিচার আশায় গিয়ে উল্টো হন মারধরের শিকার। শামীমের কার্যকলাপ নিয়ে কথা বলতেই তার ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে শামীমের ভাই শফিকুল ইসলাম। এক পর্যায়ে ঐ প্রবাসীর স্ত্রীকে অপবাদ দিয়ে মারধর করেন করতে করতে বাড়ি থেকে বের করে দেয় শফিকুল।

অবশেষে বাধ্য হয়ে গৃহবধূ গেলেন থানায়। মামলা করলেন আপন দুই ভাই শামীম ও শফিকুলের বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার দুপুরে ৩০ বছরের শামীম ও ৩৬ বছর বয়সী শফিকুলের বিরুদ্ধে থানায় ধর্ষণ চেষ্টা ও মারধরের মামলা করেন ওই গৃহবধূ। ধরা পড়ার ভয়ে এখন পালিয়ে বেড়াচ্ছে তারা।

ভিডিওটি দেখুন

ঘটনাটি বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার। অভিযুক্ত দুই ভাই ঐ উপজেলার ডহর গ্রামের বাসিন্দা। তাদের বাবার নাম মিহির উদ্দীন।

মামলায় বলা হয়েছে, মঙ্গলবার সকালে নিজ বাড়িতে সাংসারিক কাজ করছিলেন ঐ গৃহবধূ। তখন বাড়ির প্রাচীর টপকে ভেতরে ঢুকে তাকে ধর্ষণচেষ্টা করে শামীম। গৃহবধূর চিৎকারে ধর্ষণে ব্যর্থ পালিয়ে যায় সে। পরে শামীমের বাড়িতে অভিযোগ করতে গেলে তার বড় ভাই ঐ গৃহবধূকে মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। এমনকি থানায় মামলা করতে যাওয়ার সময়ও তাকে বাধা দেয় সে।

ভুক্তভোগী গৃহবধূর স্বজনরা জানান, এর আগে একাধিকবার তাকে ঘনিষ্ঠ হওয়ার প্রস্তাবও দেয় শামীম। তার প্রস্তাবে রাজি হওয়ায় শামীম ক্ষিপ্ত হয়ে ধর্ষণচেষ্টা চালায়।

জানতে চাইলে আদমদীঘি থানার এসআই প্রদীপ কুমার বর্মণ জানান, ধর্ষণচেষ্টা ও মারধরের ঘটনায় আপন দুই ভাইয়ের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন ভুক্তভোগী প্রবাসীর স্ত্রী। আসামিরা পলাতক। তাদের ধরতে অভিযান চলছে।

নিচের ভিডিওটি মিস করেন নি তো?
এই বিভাগের আরো খবর
[X]


সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত বিরহীমন ডক কম ২০১৫-২০২২