পরীর রহস্যময় ফেসবুক পোস্ট!

Loading...

রাজধানীর বনানী থানায় মা’দকদ্রব্য নিয়’ন্ত্রণ আই’নের মা’মলায় জামিন পেয়েছেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত নায়িকা পরীমনি। জামিন পাওয়ার পর আদালত প্রাঙ্গণেই শারী’রিক অসুস্থতার কারণে গাড়িতে উঠেই চিৎপটাং হয়ে পড়েন পরীমনি। এরপরে তাকে অসুস্থ অবস্থায় তার ব্যবহৃত গাড়িতে করে নিয়ে যাওয়া হয়। তাই সেদিন সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে পারেননি। এরপর কেটে যায় দুইদিন।

জামিন পাওয়ার পর এই প্রথম মঙ্গলবার দুপুরে পরিমনির অফিসিয়াল ফেসবুক পেইজে একটি ছবি পোস্ট করা হয়। ছবিতে দেখা যায়, হলুদ রঙের সুন্দর একটি জামা পড়ে নিচের দিকে তাকিয়ে মুখে হাত রেখে হাসছেন পরীমনি। সেই ছবির ক্যাপশনে পরীমনি লেখেন- মুক্ত হও, পরিপূর্ণ জীবন-যাপন করো।

ছবিটি পোস্ট করার পর মুহূর্তেই তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাই’রাল হয়ে যায়। তবে রহস্যময়ভাবে তিনি সে ছবির কমেন্ট সেকশন বন্ধ করে রাখেন। এর আগে তিনি কখনো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করা কোনো কিছুতে কমেন্ট সেকশন বন্ধ রাখেননি। এটি নিয়ে নেটিজেনদের মধ্যে ধুম্রজাল তৈরি হয়েছে।

এর আগে, রোববার ঢাকা মহানগর হাকিম সত্যব্রত শিকদারের আদালতে পরীমনির উপস্থিতিতে তার জামিন শুনানি হয়। পরীমনির আইনজীবী নীলাঞ্জনা রিফাত সুরভি এই জামিন আবেদন করেন। এদিন পরীমনি ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে উপস্থিত হন। এরপর আদালতে আত্মসমর্পণ করে তার আইনজীবীর মাধ্যমে জামিন বাড়ানোর আবেদন করেন পরীমনি। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষ জামিনের বিরোধিতা করেন। উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদালত তার জামিন বহাল রাখেন।

মা’মলার সূত্রে জানা যায়, পরীমনি ২০১৬ সাল থেকে মা’দক সেবন করতেন। এমনকি ভয়ঙ্কর মা’দক এলএস’ডি ও আ’ইসও সেবন করতেন তিনি। এজন্য বাসায় একটি মিনি বার তৈরি করেন। তিনি বাসায় নিয়মিত ম’দের পার্টি করতেন। আর চলচ্চিত্র প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজসহ আরও অনেকে তার বাসায় অ্যা’লকোহলসহ বিভিন্ন প্রকার মাদ’কের সরবরাহ করত এবং পার্টিতে অংশ নিতো।

ভিডিওটি দেখুন

উল্লেখ্য, ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত নায়িকা পরীমনি ২০১৪ সালে সিনেমা জগতে আসেন। এ পর্যন্ত ৩০টি সিনেমা ও ৫/৭ টি টিভিসিতে অভিনয় করেছেন। প্রযোজক রাজ তাকে পিরোজপুর থেকে ঢাকায় সিনেমা জগতে নিয়ে আসে।

রাজধানীর বনানী থানায় মা’দকদ্রব্য নিয়’ন্ত্রণ আই’নের মা’মলায় জামিন পেয়েছেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত নায়িকা পরীমনি। জামিন পাওয়ার পর আদালত প্রাঙ্গণেই শারী’রিক অসুস্থতার কারণে গাড়িতে উঠেই চিৎপটাং হয়ে পড়েন পরীমনি। এরপরে তাকে অসুস্থ অবস্থায় তার ব্যবহৃত গাড়িতে করে নিয়ে যাওয়া হয়। তাই সেদিন সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে পারেননি। এরপর কেটে যায় দুইদিন।

জামিন পাওয়ার পর এই প্রথম মঙ্গলবার দুপুরে পরিমনির অফিসিয়াল ফেসবুক পেইজে একটি ছবি পোস্ট করা হয়। ছবিতে দেখা যায়, হলুদ রঙের সুন্দর একটি জামা পড়ে নিচের দিকে তাকিয়ে মুখে হাত রেখে হাসছেন পরীমনি। সেই ছবির ক্যাপশনে পরীমনি লেখেন- মুক্ত হও, পরিপূর্ণ জীবন-যাপন করো।

ছবিটি পোস্ট করার পর মুহূর্তেই তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাই’রাল হয়ে যায়। তবে রহস্যময়ভাবে তিনি সে ছবির কমেন্ট সেকশন বন্ধ করে রাখেন। এর আগে তিনি কখনো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করা কোনো কিছুতে কমেন্ট সেকশন বন্ধ রাখেননি। এটি নিয়ে নেটিজেনদের মধ্যে ধুম্রজাল তৈরি হয়েছে।

এর আগে, রোববার ঢাকা মহানগর হাকিম সত্যব্রত শিকদারের আদালতে পরীমনির উপস্থিতিতে তার জামিন শুনানি হয়। পরীমনির আইনজীবী নীলাঞ্জনা রিফাত সুরভি এই জামিন আবেদন করেন। এদিন পরীমনি ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে উপস্থিত হন। এরপর আদালতে আত্মসমর্পণ করে তার আইনজীবীর মাধ্যমে জামিন বাড়ানোর আবেদন করেন পরীমনি। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষ জামিনের বিরোধিতা করেন। উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদালত তার জামিন বহাল রাখেন।

মা’মলার সূত্রে জানা যায়, পরীমনি ২০১৬ সাল থেকে মা’দক সেবন করতেন। এমনকি ভয়ঙ্কর মা’দক এলএস’ডি ও আ’ইসও সেবন করতেন তিনি। এজন্য বাসায় একটি মিনি বার তৈরি করেন। তিনি বাসায় নিয়মিত ম’দের পার্টি করতেন। আর চলচ্চিত্র প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজসহ আরও অনেকে তার বাসায় অ্যা’লকোহলসহ বিভিন্ন প্রকার মাদ’কের সরবরাহ করত এবং পার্টিতে অংশ নিতো।

উল্লেখ্য, ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত নায়িকা পরীমনি ২০১৪ সালে সিনেমা জগতে আসেন। এ পর্যন্ত ৩০টি সিনেমা ও ৫/৭ টি টিভিসিতে অভিনয় করেছেন। প্রযোজক রাজ তাকে পিরোজপুর থেকে ঢাকায় সিনেমা জগতে নিয়ে আসে।

নিচের ভিডিওটি মিস করেন নি তো?
লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন