কোরআন মুখস্থের পর ৮৫ বছর বয়সে স্নাতক করে ইতিহাস গড়লেন ফিলিস্তিনি নারী!

Loading...

কুরআনের প্রতিটি আয়াতে যেমন রয়েছে বিশ্বমানবতার হেদায়াত ও মুক্তির বারতা তেমনি কুরআন তিলাওয়াতে রয়েছে বিশ্বাসীদের জন্য অফুরান সওয়াব ও পুরস্কারের ঘোষণা।

নতুন খবর হচ্ছে, ৮৫ বছর বয়সে স্নাতক সম্পন্ন করে সবাইকে চমকে দিয়েছেন এক ফিলিস্তিনি নারী। ৩ বছর আগে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা শুরু করেন। এর আগে ৭৫ বছর বয়সে তিনি পবিত্র কোরআন হিফজ করেছিলেন।

অধ্যবসায়ী ও দৃঢ় প্রত্যয়ী নারী জিহাদ বাত্তু উম্মে সুহাইল ইসরায়েলের অধিকৃত নাজারেত শহর নিবাসী। কাফর বারা শহরের দ্য অ্যাকাডেমিক সেন্টার ফর ইসলামিক স্টাডিজ কলেজ থেকে তিনি ইসলামিক স্টাডিজে স্নাতক করেন। সমাবর্তন অনুষ্ঠানে গাউন পরা ছবি প্রকাশ পেলে সবাই তাঁর দৃঢ় মনোবলের প্রশংসা করেন।

ভিডিওটি দেখুন

১৯৪৮ সালে নাকাবার ঘটনার সময় তিনি পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত পড়াশোনা করেন। এরপর আর পড়ার টেবিলে বসা হয়নি। অতঃপর ৭৩ বছর পর ফের পড়াশোনা শুরু করেন। দীর্ঘ পরিশ্রমের পর পবিত্র কোরআন হিফজ করেন।

এক বক্তব্যে উম্মে সুহাইল বলেন, ‘আমি খুব পরিশ্রমী ছিলাম। কিন্তু তখনকার পরিস্থিতি ছিল খুবই কঠিন। আমার মা অসুস্থ হয়ে পড়েন। ফলে পরিস্থিতি আমাকে পড়াশোনা শেষ করতে দেয়নি।’

জ্ঞানার্জনের সবাইকে উৎসাহ দিয়ে বলেন, ‘দোলনা থেকে কবর পর্যন্ত জ্ঞান অন্বেষণ করুন। আমি সবাইকে বলি, আপনি শিখতে থাকুন। নিজের বয়স নিয়ে কখনো লজ্জিত হবেন না। বরং সামনের দিকে তাকিয়ে এগিয়ে যান। মানুষ কী বলছে তাতে মনোযোগ দেবেন না।

নিচের ভিডিওটি মিস করেন নি তো?
লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন