গভীর রাতে হাজির দুই শিক্ষিকা, রুমে না আসায় লা’শ হলো যু’বক

Loading...

রাজশাহীতে মজিবুর রহমান নামের এক ব্য’ক্তির ঝু’লন্ত লা’শের ত’দন্ত করতে গিয়ে বেরিয়ে এসেছে সাভারে একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষিকার ভয়ংকর ফাঁ’দের রহ’স্য। পুলিশ জানিয়েছে, শিক্ষকতার পরিচয়ের আড়ালে মানুষকে ফাঁ’দে ফেলে ‘ব্ল্যা’কমে’ইল করতেন দুই নারী। এমন কা’ণ্ডে যুক্ত দুজ’নকে গ্রে’ফতা’র করা হয়েছে।

তারা হলেন- আইরিন ইয়াসমিন লিজা (৩৪) ও শামীমা আক্তার (২৪)। আইরিনের গ্রামের বাড়ি নওগাঁর মান্দা উপজেলার বালিচ গ্রামে। আর শামীমা ঢাকার সাভারের ডেন্ডাবর নতুনপাড়ার বাসিন্দা। দুজনেই সাভারের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক।

ভিডিওটি দেখুন

রাজশাহী মহানগরীর বোয়ালিয়া থানা পুলিশ ঢাকা থেকে রোববার রাতে তদের গ্রে’ফতা’র করা। তাদের বিরুদ্ধে মজিবুর রহমান নামে এক ব্যক্তিকে আ’ত্মহ’ত্যা’র প্র’রো’চণা দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে।

সোমবার দুপুরে রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক তার কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এসব তথ্য জানান।

পুলিশ জানায়, মজিবুর রহমান রাজশাহীতে প্লট কেনাবেচা এবং প্রাইভেটকার ভাড়া দেওয়ার ব্যবসা করতেন। গত ৭ ফেব্রুয়ারি নগরীর উপশহরের দুই নম্বর সেক্টরের একটি ভাড়া বাসা থেকে তার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় তার ছেলে থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা করেছিলেন। সেই মামলার তদন্ত করতে গিয়ে দুই নারী শিক্ষকের সম্পৃক্ততার বিষয়টি বেরিয়ে আসে। এরপরই তাদের গ্রেফতার করা হয়। তাদের কাছ থেকে মৃত মজিবুর রহমানের মোবাইল উদ্ধার করা হয়েছে।

নিচের ভিডিওটি মিস করেন নি তো?
লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন