কার পার্কিং ছাদে নয়, করোনা ল্যাব বসবে বিমানবন্দরের ভেতরে!

Loading...

সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ (ইউএই) বিভিন্ন দেশে যাত্রার আগে প্রবাসী কর্মী ও অন্যান্য যাত্রীদের করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা করতে অনুমোদন পাওয়া সাতটি প্রতিষ্ঠানের আরটি-পিসিআর ল্যাবরেটরি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কার পার্কিং এলাকার ছাদে নয়, বিমানবন্দরের অভ্যন্তরে স্থাপন করা হচ্ছে।

মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) সরেজমিনে বিমানবন্দর পরিদর্শনে এসে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব ড. আহমদ কায়কাউস এ নির্দেশনা দেন।

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের একাধিক দায়িত্বশীল শীর্ষ কর্মকর্তা সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) এর বরাদ্দকৃত বিমানবন্দরের দোতলার কার পার্কিং এলাকা আরটি-পিসিআর স্থাপনের জন্য আপাতত উপযুক্ত নয় এবং সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই) কর্তৃপক্ষ নানা শর্ত জুড়ে দিচ্ছে, এমন তথ্য পেয়ে সকালে বিমাবন্দর পরিদর্শনে আসেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব।

পরে তিনি বিমানবন্দরের এক নম্বর টার্মিনালে স্বাস্থ্য অধিদফতরের ডেস্কের কাছাকাছি ল্যাব স্থাপনের জন্য স্থান নির্বাচন করে সেখানে দ্রুত ল্যাব স্থাপনের নির্দেশনা দেন।

এ সময় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সিনিয়র সচিব লোকমান হোসেন মিয়া, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ইমরান আহমেদ, সচিব ড.আহমেদ মুনিরুছ সালেহীন, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো.মোকাম্মেল হোসেন ও বেবিচক চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমানসহ সংশ্লিষ্ট শীর্ষ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতরের কর্মকর্তাদের পরামর্শ ও গাইডলাইন মেনে অনুমোদনপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানগুলো আরটি-পিসিআর ল্যাব বসাবে।

ভিডিওটি দেখুন

ল্যাব স্থাপনে স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতরের প্রকৌশলী ও কর্মকর্তা এবং বিমানবন্দরে সংশ্লিষ্ট কাজে সম্পৃক্তদের নিয়ে দুপুর ১টায় বেবিচক এয়ার ভাইস মা র্শাল মো. মফিদুর রহমান জরুরি সভায় বসার কথা রয়েছে।

আগামীকাল বুধবার পরীক্ষামূলকভাবে ৫০ জন যাত্রী ইউএইতে যাবে কি না, এ সম্পর্কে জানতে চাইলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা বলেন, আগে প্রাথমিক সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মোবাইল আরটি-পিসিআর ল্যাবের মাধ্যমে করোনার নমুনা পরীক্ষা করে

পরীক্ষামূলকভাবে ৫০ জন যাত্রী পাঠানোর কথা থাকলেও এখনো এ নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে দুপুরে বেবিচক চেয়ারম্যানের সঙ্গে বৈঠকে এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসতে পারে।

জানা যায়, বেবিচক চেয়ারম্যান বরাবর ঢাকাস্থ সংযুক্ত আরব আমিরাত দূতাবাসের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে ল্যাব স্থাপনে বায়োসেফটি লেভেল-২ নিশ্চিত করার কথা বলা হয়েছে।

এর আগে হযরত শাহজালাল (র.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পার্কিং ইয়ার্ডের ছাদে সংযুক্ত আরব আমিরাতগামী যাত্রীদের করোনা পরীক্ষার আরটি-পিসিআর ল্যাব স্থাপনের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করে বেবিচক। স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউরস (এসওপি) পাঠানো ছয় প্রতিষ্ঠানের তালিকা গত শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) ঢাকাস্থ সংযুক্ত আরব আমিরাত দূতাবাসে পাঠানো হয়।

সংযুক্ত আরব আমিরাতগামীদের দাবির মুখে গত বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সাত প্রতিষ্ঠানকে বিমানবন্দরে ল্যাব স্থাপনের অনুমতি দেয় প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়।

প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে, স্টেমজ হেলথ কেয়ার (বিডি) লিমিটেড, সিএসবিএফ হেলথ সেন্টার, এএমজেড হাসপাতাল লিমিটেড, আনোয়ার খান মডার্ন মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, জয়নুল হক সিকদার ওমেন্স মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হসপিটাল প্রাইভেট লিমিটেড, গুলশান ক্লিনিক লিমিটেড ও ডিএমএফআর মলিকুলার ল্যাব অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক।

নিচের ভিডিওটি মিস করেন নি তো?
লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন