ভিডিও ক্লিপ দেখে পরীমনি বললেন ‘পুরো ভিডিও চাই’!

Loading...

চিত্রনায়িকা পরীমণি বিতর্ক যেন থামছেই না। একের পর এক নতুন খবর বেড়িয়ে আসছে এই ইস্যুতে। প্রথমে প;রীমণি তার বিরু;দ্ধে অভি;যোগ করলেও ঘটনার তদন্তের সাথে সাথে এই নায়িকার বি;রু;দ্ধেও বিভিন্ন অভিযোগ

নতুন করে উঠে আসছে। গত ৯ জুন উত্তরার বোট ক্লাবে পরীমণির সেই মধ্যরাতের ঘটনার আরেকটি ভিডিও ন;তুন করে ভাইরাল হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে পরীমনি বলেন, ‘কয়েক সেকেন্ডের বিভ্রান্তিকর অস্পষ্ট ক্লিপ নয়, আমি পুরো ভিডিও চাই। শুরু থেকেই বলে আসছি, ক্লাবের ভেতরের সিসিটিভি ফুটেজ প্রকাশ করার জন্য। যদি কয়েক সেকেন্ড পাওয়া যায়, তাহলে নিশ্চয়ই পুরো ফুটেজ আছে। দয়া করে পুরো ফুটেজ প্রকাশ করুন।’

সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ করে এই অভিনেত্রী আরো বলেন, ‘আমি চাই, সবাই সত্যটা জানুক- কী ঘটেছে সেই রাতে।’

কয়েকটি দৈনিক পত্রিকার অনলাইনে সেই ভিডিওর বরাত দিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে ভিডিওর কথা উল্লেখ করে লিখেছে, পরীমণি ক্লাবে ঢুকেই বারের সামনে চেয়ারে বসে তার সঙ্গীদের নিয়ে

ম;দ পান করছেন। এই সময় দূর থেকে বোট ক্লাবের পরিচালনা পরিষদের সদস্য নাসির ইউ মাহমুদ তাকে ম;দ পান কর;তে বা;রণ করেন। তখন পরী;মণি এ;কটি বো;তল নি;তে ;চাইলে নাসির ইউ মাহমুদ বলেন, আপ;নি

কোনো বি;দেশি ম;দ নি;তে পারবেন না। এ;খানেও তাকে নিবৃ;ত; করা;র চেষ্টা ক;রেন পরি;চালনা প;রিষদের সদস্য।

ভিডিওটি ভাইরালের পর তা পর্যালোচনা করে দেখছে আইন শৃংঙ্খলা রক্ষা;কারী ;বাহিনি। অ;ভিযোগ উ;ঠেছে, পরীমণি ম;দ পা;নে বা;ধা পে;য়েই বেপরো;য়া হয়ে ওঠেন। এর;পর ক্ষু;ব্ধ পরী;মণি ক্লাবে ভা;ঙচুর চা;লান। গ্লাস,

ভিডিওটি দেখুন

প্লেট ভাঙেন এবং নাসির ইউ মাহমুদের দিকে বোতল ছুড়ে মারেন। এক পর্যায়ে নাসির মাহমুদ ক্ষুব্ধ হয়ে পরীমণিকে চড় মেরে বসেন। পরবর্তীতে পরীমণি;ও সংবাদ সম্মেলনে চ;ড় মা;রার; বিষয়টি সাংবাদিক;দের জানিয়েছিলেন।

এর আগে গণমাধ্যমে বোট ক্লাবের সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ প্রকাশ পায়। ফুটেজে দেখা যায়, ৯ জুন রাত ১২ টা ২২ মিনিটে ঢাকা বোট ক্লাবের সামনে একটি কা;লো গাড়ি দাঁড়ায়। নামতে দেখা যায় পরীমনি, জিমি ও অমিকে।

কিছুক্ষণ পর গাড়ি থেকে বে;র হন বনিও। ক্লাবের রিসিপশনেও অমির সঙ্গে পরীম;নিসহ অন্যদের ঢু;কেতে দেখা যায়। সেখানে আগে থেকেই ছিলেন নাসির ইউ আহমেদ।

দেড় ঘণ্টা পর পরীমনীকে অচে’তন অবস্থায় কোলে করে দৌড়ে বের হতে দেখা যায় জিমি ও একজন নিরাপত্তা

প্রহরীকে। পেছন আসেন অমিও। ক্লাবে অমির কালো গাড়িতে গেলেও পরীমনি ফিরেছেন সাদা রঙের একটি গাড়িতে। সেখান থেকে রাত তিনটা ৫২ মিনিটে বনানী থানায় আসেন পরীমনি।

ডিউটি অফিসারের রুমেও তাকে অসুস্থ দেখা যায়। কিছুক্ষণ পর সেখান থেকে বেরিয়ে যান। পুলিশ গাড়িতে করে এভারকেয়ার হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয় পরীমনিকে।

নিচের ভিডিওটি মিস করেন নি তো?
লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন