ইসরাইল মানব’বি’দ্বেষী রাষ্ট্রঃ উ. কোরিয়া!

Loading...

উত্তর কোরিয়া বলেছে ‘ইসরাইল একটা মানব;বি;দ্বে;ষী রাষ্ট্র। তারা মা;নবতাবি;রোধী অপ;রা;ধ ক;রছে। গণ;হ;;ত্যা চালা;। শিশুদে;র টা;র্গে;ট করছে।’ ।

গাজা উপত্যকায় ইসরা;ই;লি আ;গ্রাসন ও বি;রাম;হীন বি;মান হা;ম;লা;র প্রতি;ক্রিয়া;য় দেশটি;র যু;দ্ধবা;জ নেতা;দের এক নিয়েছেন এশিয়া;র এই নিভৃ;ত ও বি;চ্ছিন্ন দেশ;টির সরকার।

রাজধানী পিয়ংইয়ংয়ে শুক্রবার দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘ইসরাইলের একটি চরম মা;নব;বিদ্বে;ষী রূ;প রয়ে;ছে। সেই;সঙ্গে রয়ে;ছে ভূখণ্ড বিস্তা;রের চ;রম উ;চ্চাভিলাস;। দে;শটি রা;ষ্ট্রীয় সন্ত্রা;সবাদে লি;প্ত এবং অন্য জা;তি ও দেশ;গুলোর ও;পর দমন-পীড়;ন চা;লাচ্ছে।’

পূর্ব জেরুজালে;মের শেখ জার;রাহ এলাকা;য় ;নতুন ;ক;রে ;দখ;লদারির জে;রে উ;ত্তে;জনা ;শু;রু হয়। একপর্যায়ে চলতি মা;সের শুরুর দিকে (১০ মে) ‘অপা;রেশন গার্ডি;য়ান অব দ্য ওয়া;লস’ নামে (অব;রু;দ্ধ ভূখণ্ড গাজা উপত্যকায় আ;গ্রাস;ন শুরু ক;রে ই;সরাইল।

বিরা;ম;হীন বি;মান হা;ম;লা;র সঙ্গে স;ঙ্গে চা;য় স্থল অ;ভিযান। টানা ১১ দিনের আ;গ্রাস;নে অ;ন্তত ৬৬ শিশু ও ৩৯ নারীসহ ২৫৪ ফিলি;স্তিনি নি;হ;ত হন। আ;হ;ত হন আ;রও এক হাজার ৯৪৮ গা;জাবাসী। শত শত ঘ;রবাড়ি ও অ;ফিস ধ্বং;স হয়েছে।

এই প্রথম নয়, গত প্রায় একশ’ বছর ধরেই মাঝে মাঝেই এমন ফি;লিস্তিনে এমন তা;ণ্ডব ও হ;ত্যায;জ্ঞ চালা;চ্ছে ইসরাইলি বা;হিনী। উ;ত্তর কোরি;য়া বলেছে, ‘পুরো গাজা; উপত্য;কা ক;সাইখানায় প;;রিণত হয়েছে। সে;নে শিশু;দের গণ;হ;;ত্যা করা হচ্ছে।’ এসব ক;র্মকাণ্ড ইসরা;ইলের মানবতা;বিরো;ধী অ;পরা;ধ বলেও অ;ভি;হিত করেছে পিয়ংইয়ং।

ভিডিওটি দেখুন

উত্তর কোরিয়ায় সম্প্রতি নতুন একটি আইন পাশ হয়েছে, যার উদ্দেশ্য যে কোনো ধরনের বিদেশি প্রভা;ব প্রতি;হ;ত করা। এই আ;ইনে বলা হয়েছে-কেউ যদি ভিনদেশি সিনেমা দেখে, ভিন;দেশি পো;শাক পরে, এম;নকি গা;লিও দেয়, তবে তা;কে কঠো;র শাস্তি; মু;খে পড়তে হবে।

দক্ষিণ কোরিয়ার নাট;কসহ ধ;রা প;ড়া এক ব্যক্তি;র মৃ;ত্যুদ;ণ্ড স্বচ;ক্ষে দে;খেছিলেন ইয়ুন মি-সো। তখন তার বয়েস মোটে এগারো। তার সব প্র;তিবেশীকেই বাধ্য করা হয়েছিল এই দৃ;শ্য দেখতে।

‘আপনি না দেখলে তা হতো রাষ্ট্র;দ্রোহের শামিল’, ব;লেন ইয়ুন মি-সো। তিনি এখ;ন সো;লের বা;সিন্দা। অ;বৈ;ধ ভিডিও চোরাচালা;ন করা;র শা;স্তি যে মৃ;ত্যুদ;ণ্ড সে;টা যেন সবার জা;না থাকে, উত্তর কোরি;য়ার প্রহ;রীরা তা নিশ্চি;ত করতে চাইছিল। তার ভাষায়, ‘আমার স্পষ্ট মনে আছে, লো;কটির চোখ বাঁ;ধা ছিল। আ;মি এখনো; ক;ল্পনায় দেখি, তার চোখের পানি গ;ড়ি;য়ে পড়ছে;। খুব যন্ত্র;ণাদায়;ক এক;টা স্মৃতি।

যে কা;পড় দিয়ে; লো;কটির চোখ বাঁ;ধা হয়েছিল, সেটি চো;খের পানি;তে ভি;জে গিয়ে;ছিল।’ কি;ম ;জং-আন নতুন এক আইন দি;য়ে আরও চে;পে ধর;তে চাই;ছেন, যে আই;নটি ‘প্রতিক্রিয়া;শীল চি;ন্তা’ রুখে দেওয়ার জন্য প্রণয়;ন করা হয়েছে বলে বর্ণনা করা হচ্ছে উত্তর কোরিয়ায়।

সূত্রঃ বিবিসি।

নিচের ভিডিওটি মিস করেন নি তো?
লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন