এখনো উদঘাটন হয়নি সেই গাড়ির রহস্য!

Loading...

এখনো উদ’ঘাটন হলো না সেই গাড়ির রহস্য। কলেজছাত্রী মোসারাত জাহান মুনিয়ার বড় বোন নুসরাত জাহান তানিয়ার চড়া (ঢাকা মেট্রো-ঘ-১১-৭১১০) বিলাসবহুল সেই গাড়ির মালিকের সন্ধানও মেলেনি এখনো।

কোরিয়ান ব্যক্তির ওই গাড়িটি কে বা কারা ক্রয় করেছিলেন? তারপরে বিআরটিএ-তে রেজিস্ট্রেশন (নাম পরিবর্তন) ছাড়াই কারা সেই গাড়ি ব্যবহার করছেন তাও বের হয়নি।

একাধিক তদ’ন্তকা’রী সংস্থা খতিয়ে দেখছে, মুনিয়ার বোন নুসরাতের ব্যব’হার করা সেই গাড়ির আসল মালিক কে? মুনিয়ার আ’ত্ম’হ’ত্যার সঙ্গে ওই গাড়ির মালি’কের সম্পৃক্ততা এবং নুস’রাতের সঙ্গে তার সম্পর্ক কি? তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। পুরো বিষ’য়টি অন্ধ’কা’রাচ্ছন্ন বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

নুসরা’তকে যৌ’থ সেলে নিয়ে জি’জ্ঞাসা’বাদ করলে গাড়ি’সহ সকল প্র’শ্নের উত্তর মিলবে বলে একা’ধিক মহল মনে করছেন। এছা’ড়া মুনি’য়ার বোন নুসরাত এবং তার স্বামীর ব্যাংকের হিসাব-নিকাশ খ’তিয়ে দেখা দর’কার।

কে’ননা সেই গাড়ি’টির ম’তোই তাদের স’কল কার্য’ক্রম রহ’স্য’ময়। প্রসঙ্গত, গত ২৬ এপ্রিল মো’সারাত জাহান মুনিয়ার আ’ত্ম’হ’ত্যার ঘটনায় একটি বি’লাস’বহুল গাড়িকে ঘিরে তৈরি হয় রহস্য। মুনিয়ার বড় বোন নুস’রাত জাহান ওই দিন ঘট’নাস্থলে আ’সেন একটি দামি গাড়িতে। সেই রাতে এই গা’ড়ির অস্বাভা’বিক আনা’গোনা ভাবিয়ে তোলে কর্ম’কর্তা’দের।

ভিডিওটি দেখুন

হঠাৎ কি’ভাবে এই দামি গাড়ি পেলেন মুনিয়ার বড় বোন নুসরাত জাহান। পরে ওই দিন থেকেই ঢাকা মেট্রো-ঘ-১১-৭১১০ নম্বরের ওই বি’লা’সবহুল গা’ড়ি”টির মালি’ককে খোঁজা হচ্ছে।

বিআরটিএ সূত্র জা’নিয়েছে, ১৭ জানুয়ারি ২০০৬ সালে এই গা’ড়িটি কোরিয়ান মালি’কা’ধীন বায়িং হাউজ গিল’কো ই’ন্ডাস্ট্রি লি’মিটেড- এর নামে রেজি’স্ট্রেশন করা হয়। কোম্পা’নীর মালি’কের নাম এইচ কে কিম।

ঠিকানা দেওয়া ছিল বাসা নম্বর ১৩, রোড নম্বর ২৮, বনানী ঢাকা। কিন্ত এই কোম্পানীর কার্যক্রম ২০০৯ সালে বন্ধ হয়ে যায়। এরপর থেকে তাদের এই গাড়ি কে ব্যবহার করছেন তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

বিআরটিএ জা’নিয়েছে, ৩৫০০ সিসি’র হু’ন্দাই কোম্পা’নীর এই জীপ গাড়ির ট্যা’ক্সও বকেয়া রয়েছে। কাগ’জপত্র আপ’ডেট তথা নাম পরিবর্তন করতে বিআরটিএ তে আসেননি কেউ। সূএঃ পূর্বপশ্চিমবিডি

নিচের ভিডিওটি মিস করেন নি তো?
লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন