আ’পত্তি’কর অবস্থায় আ’ট’ক সেই প্রেমিক-প্রেমিকার বিষয়ে কোনো সুরাহা হয়নি!

Loading...

গভীর রাতে আ;প;ত্তিকর অবস্থায় আট;কের দুইদিন পার হলেও সেই প্রেমিক-প্রেমিকার বিষয়ে এখনো কোনো সুরাহা হয়নি। এ বিষয়ে থানায় কোনো অভি;যাগও করা হয়নি। ফলে বাধ্য হয়েই মেয়ে এখনো ছেলের বাড়িতে অবস্থান করছে। এ নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

এ ঘটনায় ওই কলেজছাত্রী বলেন, আমার সঙ্গে রনির ৪ বছরের প্রেমের সম্পর্ক। সম্পর্ক হওয়ার পর থেকে আমরা কাছে যাওয়া আসা করি। ঘটনার দিন রাতে আমার সঙ্গে প্রতিদিনের মতোই ফোনে কথা হয়। কথার একপর্যায়ে সে আমাকে

বাগানে দেখা করতে বলে। আমি তার সঙ্গে দেখা করতে গেলে বাড়ির পাশের গরুর খামার মালিক মিয়ন ও তার সঙ্গে কয়েকজন আমাদের দু’জনকে ধরে ফেলে।

মেয়েটির বাবা জানান, এখন পর্যন্ত আমি মেয়ের খোঁজ পাইনি। তার সঙ্গে একাধিকবার মোবাইল ফোনে কথা বলার চেষ্টা করেছি কিন্তু পাওয়া যায়নি। আমি এখনো থানায় কোনো অভি;যোগ করিনি। মেয়েটিকে ওরা জিম্মি করে রেখেছে। আমি চাই তাদের বিয়ে হোক। তবে আজকে মীমাংসার জন্য বসার কথা। মী;মাং;সা না হলে আমি আইনের আশ্রয় নিবো।

ভিডিওটি দেখুন

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, হাজরাবাড়ী অনার্স কলেজের স্নাতক প্রথম বর্ষের ছাত্র দেলোয়ার হোসেন রনির সঙ্গে

মেলান্দহের মালঞ্চ মহিলা মাদরাসার একাদশ শ্রেণির এক ছাত্রীর ৪ বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক চলছিল। রোববার রাত ২টায়

দেলোয়ার হোসেন রনি বংশী বেলতৈল এলাকায় ওই ছাত্রীর বাড়ির কাছেই একটি বাগানে আপত্তিকর অবস্থায় তাদের দু’জনকে স্থানীয় কয়েকজন হাতে;নাতে ধ;রে ফেলে। ছেলে;র পরিবার বিয়ের কথা বলে মেয়ের আত্মী;য়ের বাড়ি থেকে রনিকে পালিয়ে যাওয়ার সু;যো;গ করে দেন।

এ বিষয়ে মেলান্দহ থানার ওসি এমএম ময়নুল ইসলাম জানান, এ বিষয়ে থানায় এখনো কোনো অভিযোগ আসেনি। মেয়ের পক্ষে কেউ থানায় এসে অভিযোগ করলে আমরা ব্যবস্থা নেব।

নিচের ভিডিওটি মিস করেন নি তো?
লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন