রায়হানের লা’শ কবর থেকে তুলে পুনরায় ময়’নাতদ’ন্ত, শরীরে অসংখ্য আ’ঘা’তের চিহ্ন, নখ ছিল উপড়ানো!

Loading...

সিলেটে পুলিশি হেফাজতে নি’র্যাতনে নিহত রায়হান আহমেদের (৩৩) লা’শ কবর থেকে তুলে পুনরায় ময়নাতদ’ন্ত করা

হয়েছে। দা’ফনের চার দিন পর গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সজিব আহমেদ ও

মেজবাহ উদ্দিন এবং পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) কর্মকর্তাদের উপস্থি’তিতে লা’শ উত্তোলন করে ময়নাতদ’ন্তের জন্য ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে নেওয়া হয়।

সেখানে ওসমানী মেডিক্যাল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান সহকারী অধ্যাপক শামসুল ইসলামের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করে। মেডিক্যাল বোর্ডে থাকা অন্য দুজন হলেন ফরেনসিক বিভাগের

প্রভাষক দেবেস পোদ্দার ও প্রভাষক আবদুল্লাহ আল হেলাল। ময়নাতদন্ত শেষে বিকেল ৩টায় রায়হানের লাশ পুনরায় দা’ফন করা হয়।

ভিডিওটি দেখুন

ময়নাতদ’ন্ত শেষে বোর্ডের প্রধান শামসুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, ‘রায়হানের শরীরে প্রচুর আঘা’তের চিহ্ন পাওয়া গেছে। তাকে প্রচুর মারধ’র করা হয়েছে। তবে ঠিক কী কারণে রায়হানের মৃ’ত্যু হয়েছে, তা সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন পরীক্ষার রিপোর্ট পাওয়ার পর বলা যাবে।’

তিনি আরও জানান, রায়হানের প্রথম দফার ময়নাতদ’ন্তের প্রিলিমিনারি রিপোর্ট গতকাল সকালে পিবিআইকে দেওয়া হয়েছে। কিছু রাসায়নিকের নমুনা চট্টগ্রামের পরীক্ষাগারে পাঠানো হয়েছে। সেগুলোর ফল এলে ময়নাতদ’ন্তের পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন দেওয়া হবে।

এদিকে বন্দরবাজার ফাঁড়ির বরখাস্তকৃত এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়া যাতে দেশ ছেড়ে পালাতে না পারেন সেজন্য দেশের সব ইমিগ্রেশনে চিঠি পাঠিয়েছে পিবিআই। পিবিআইর প্রধান বনজ কুমার মজুমদার গতকাল দুপুরে ঢাকায়

পিবিআইর প্রধান কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। এ সময় তিনি আরও বলেছেন, এসআই আকবর পলাতক। কিন্তু মা’মলা তদ’ন্তের জন্য তাকে দরকার। তাই তাকে খুঁ’জে বের করার চেষ্টা চলছে।

নিচের ভিডিওটি মিস করেন নি তো?
লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন