গ্রহণের সময় যুগান্তকারী আবিষ্কার, সূর্যগ্রহণকে ঘিরে এরকমই কিছু অজানা তথ্য!

Loading...

সূর্য গ্রহণ নিয়ে চারি দিকে প্রচুর হ’ইচ’ই। একই সঙ্গে গ্রহণকে কেন্দ্র করে মানুষের মনে ঘুরেছো বহু রকম প্রশ্ন। যেমন, বছরে কতবার হয় গ্রহণ?

তারমধ্যে কতবার সূর্যগ্রহণ হয় আর কতবার চন্দ্রগ্রহণ হয় জানেন কি? একশো বছরে কতবার গ্রহণ হয়ে থাকে? শুনলে অবা’ক হবেন গ্রহণেরও আবার হাইব্রিড আছে!

যে দেশে গ্রহণকে ঘিরে এত কুসং’স্কার সেই ভারতেই গ্রহণের সময় আবিষ্কার হয়েছিল বিজ্ঞানের একটি অসাধারণ বস্তু। কিন্তু সেটি কি?

কলকাতার পজিশনাল অ্যাস্ট্রোনমির অধিকর্তা সঞ্জীব সেন বলেন, এক বছর সময় কালের মধ্যে মোট সাত বার গ্রহণ হতে পারে। এরমধ্যে পাঁচবার সূর্যগ্রহণ আর দুবার চন্দ্রগ্রহণ ঘটতে পারে।

তবে কখনও কখনও সাত বারের মধ্যে চারবার সূর্যগ্রহণ আর তিনবার চন্দ্রগ্রহণ হতে পারে। কিন্তু বছরে সবচেয়ে কম কতবার গ্রহণ হতে পারে? সঞ্জীব বাবু জানান, বছরে সবচেয়ে কম দু’বার গ্রহণ হতে পারে, তবে সে ক্ষেত্রে দু’বারই হবে সূর্য গ্রহণ।

ভিডিওটি দেখুন

জ্যোতির্বিজ্ঞানীদের পরিসং’খ্যান বলছে ১০০ বছরে মো’টামু’টি ২৩৮ বার গ্রহণ হয়ে থাকে। এরমধ্যে ৩৫ শতাংশ হবে আংশিক গ্রহণ, ২৭ শতাংশ হবে পূর্ণ গ্রহণ, ৩৩ শতাংশ হবে এবারের মত বলয় গ্রাস গ্রহণ।

আর পাঁচ শতাংশ হবে হাইব্রিড গ্রহণ। মনে অবশ্যই প্রশ্ন আসে হাই’ব্রিড গ্রহণ আবার কি রকম হয়? সঞ্জীব বাবু জানাচ্ছেন, যখন পূর্ণ এবং ব’লয় গ্রা’স গ্রহণ একসঙ্গে হয় তখন তাকে জ্যোতির বিজ্ঞানের ভাষায় হাই’ব্রিড গ্রহণ বলা হয়।

তবে হাইব্রিড গ্রহণের সাক্ষী হতে পারা একটি বিরল অভিজ্ঞতা। এই ধরনের গ্রহণ সাধারণত হয়ে থাকে আঠারো বছর এগারো দিন আট ঘন্টা পর। জ্যোতির্বিজ্ঞানের ভাষায় যাকে বলা হয় সারস সাইকেল।

গ্রহণের সময় ভারতের মাটিতে হয়েছিল একটি যুগান্তকারী আবিষ্কার। ১৮৬৮ সালের ১৮ অগস্ট ফ্রান্সের জ্যোতির্বিজ্ঞানী জ্যাঁসে দক্ষিণ ভারতের গুন্টুরে তামাক ক্ষেতে মধ্যে দাঁড়িয়ে একটি পূর্ণ গ্রা’স গ্রহণ দেখছিলেন।

সেই সময় তিনি হিলিয়াম গ্যাস আবিষ্কার করেন। গবেষণাগারে হিলিয়াম গ্যাসের আবিষ্কার এরপরে হয়েছিল। সূত্র : নিউজ ১৮

নিচের ভিডিওটি মিস করেন নি তো?
লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন