যে জেলার ৪৫ গ্রামে আগামীকাল ঈদ!

Loading...

বরিশাল বিভাগের চার জেলার ৪৫ গ্রামে চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামীকাল রবিবার পবিত্র ঈদ-উল ফিতর পালিত হবে। চট্টগ্রামের চন্দনাইশ শাহসুফি দরবার শরিফ, সাতকানিয়া মির্জাখালী দরবার শরিফ এবং আহমাদিয়া জামাত অনুসারী বিভাগের বরিশাল, পটুয়াখালী, বরগুনা ও ভোলার ওইসব গ্রামের মুসল্লীরা দীর্ঘদিন ধরে সৌদি আরবের সাথে মিল রেখে ঈদ উদযাপন করে আসছেন।

বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার রহমাতপুর ইউনিয়নের খানপুরা গ্রামের সাতকানিয়া পীরের অনুসারী জাহাঙ্গির সিকদার এ তথ্য জানিয়ে বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে রবিবার বিভাগের ৪ জেলার এসব এলাকায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার ৬টি ইউনিয়নের ২০টি গ্রামের প্রায় ২ হাজার মানুষ চট্টগ্রামের চন্দনাইশ শাহসুফি দরবার শরিফ ও সাতকানিয়া মির্জাখালী দরবার শরিফের অনুসারী। জেলার হিজলা, মেহেন্দিগঞ্জ, মুলাদী, বাকেরগঞ্জের সুন্দরকাঠী, বরিশাল নগরীর ২৩ নং ওয়ার্ডের তাজকাঠি, জিয়া সড়ক, টিয়াখালী, সিকদার বাড়িসহ বেশ কয়েকটি উপজেলার কয়েক হাজার মানুষও প্রতি বছরের নেয় এবারও একদিন আগে ঈদ উদযাপনের প্রস্তুতি নিয়েছেন।

জানতে চাইলে নগরীর ২৩ নং ওয়ার্ডের তাজকাঠি এলাকায় হাজি বাড়ি জামে মসজিদের সভাপতি আমীর হোসেন মিঠু বলেন, রবিবার সকাল ৯টায় ওই মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

ভিডিওটি দেখুন

বাবুগঞ্জের খানপুরা গ্রামের সাতকানিয়া পীরের অনুসারী জাহাঙ্গির সিকদার বলেন, চট্টগ্রামের চন্দনাইশ শাহসুফি দরবার শরিফের নির্দেশনা অনুযায়ী প্রতিবছর ঈদ পালন করে আসছেন। এবারও চাঁদ দেখা স্বাপেক্ষে ভেটেরেনারী কলেজের পাশে ঈদের জামাতের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে উপকূলীয় এলাকা পটুয়াখালীর ২২ গ্রামের প্রায় ৫ হাজার মানুষ সৌদি আরবের সাথে মিল রেখে ঈদ পালনের প্রস্তুতি নিয়েছেন। গ্রামগুলো হচ্ছে- পটুয়াখালীর গলাচিপার সেনের হাওলা, পশুরী বুনিয়া, নিজ হাওলা, কানকুনি পাড়া, বাউফলের রাজনগর, বগা, তাঁতেরকাঠি, মদনপুরা, ধাউরাভাঙ্গা, সুরদি চন্দ্রপাড়া, কনকদিয়া, দিপাশা, শাপলা খালী, আমিরাবাদ, কলাপাড়ার দণি দেবপুুর।

উপকূলীয় এলাকা বরগুনা জেলার আমতলী, পাথরঘাটা, বরগুনা সদর, বেতাগী উপজেলার ৫ সহস্রাধিক অনুসারী রবিবার ঈদ পালনের প্রস্তুতি নিয়েছেন।

দ্বীপ জেলা ভোলার পাঁচ উপজেলার ১০টি গ্রামের প্রায় ৫ হাজার পরিবারের লোকজন সুরেশ্বরী ও সাতকানিয়া পীরের অনুসারী। ভোলা সদরের ইলিশা, বোরহানউদ্দিনের মুলাইপত্তন, টবগী, পয়িা ও পশ্চিম মুলাইপত্তন, লালমোহন পৌর এলাকা ফরাজগঞ্জ ও লাঙ্গলখালী, তজুমদ্দিন উপজেলার শিবপুর ও শম্ভুপুর এবং চরফ্যাশন উপজেলার আমিনাবাদ গ্রামর প্রায় ৫ হাজার মানুষ রবিবার ঈদ উল ফিতর উদযাপনের প্রস্তুতি নিয়েছেন বলে জানা গেছে।

নিচের ভিডিওটি মিস করেন নি তো?
লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন