অপূর্বকে আবার বিয়ে করতে চান তার সাবেক স্ত্রী সাদিয়া জাহান প্রভা?

Loading...

দীর্ঘ ৯ বছরের দাম্পত্য জীবন ছোট পর্দার অভিনেতা জিয়াউল ফারুক অপূর্ব ও তার স্ত্রী নাজিয়া হাসান অদিতির। শোবিজে তাদের আদর্শ দম্পতি হিসেবে দেখা হতো। ১৭ মে এই জুটির হঠাৎ ডিভোর্সের খবরে বিস্মিত সবাই।

এদিকে ডিভোর্সের ব্যাপারে একে একে মুখ খুলছেন অপূর্ব ও অদিতি। ১৭ মে রাতে এক ইংরেজি স্ট্যাটাসে অপূর্ব ডিভোর্সের কথা স্বীকার করে তার, অদিতি এবং তাদের সন্তানের জন্য দোয়া চেয়েছেন।

অপূর্ব যা লিখেছেন তার কিছু অংশ এমন, ‘বেদনার সাথে আমি সবাইকে জানাচ্ছি যে নাজিয়া হাসান অদিতির সাথে আমার ৯ বছরের দুর্দান্ত যাত্রাটি অপ্রত্যাশিতভাবে থেমে গেল। আমরা এমনটা চাইনি। তবে আমাদের জীবন এখানে আমাদের এনে দাঁড় করিয়েছে।

এত বছর যাবত আমরা একসাথে ছিলাম। সে সর্বদা দুর্দান্ত একজন সঙ্গী এবং সত্যিকারের শুভাকাঙ্ক্ষী ছিলেন। আমার অনেক সাফল্যের পেছনে মূল ভূমিকা পালন করেছে অদিতি। সে এক আশ্চর্য ব্যক্তি, একজন আত্মবিশ্বাসী উদ্যোক্তা এবং সর্বোপরি অত্যন্ত দয়ালু এবং মানবিক ব্যক্তি।’

অপূর্ব আরও বলেন, ‘যদিও আমি আমার ক্যারিয়ারে অনেক অর্জন করেছি, তবুও আমার সর্বকালের সবচেয়ে বড় অর্জন আমাদের ছেলে আয়াশ। পিতৃত্বের এই দুর্দান্ত উপহারের জন্য আমি নাজিয়ার কাছে কৃতজ্ঞ। সে একজন অনুকরণীয় মা।

আমি বুঝতে পারি যে বিয়ের মতো সম্পর্ক ভাঙ্গার পর অনেক প্রশ্ন উঠে। তবে আমি আমার বন্ধুবান্ধব, আমার সহকর্মীদের এবং আমার লক্ষ লক্ষ ভক্তদের অনুরোধ করছি যে দয়া করে আমাদের জায়গা থেকে ভাবুন।

সবাই জেনে রাখুন আমাদের পক্ষে এটিই সর্বোত্তম সিদ্ধান্ত হয়েছে।এই সিদ্ধান্তে আমাদের উভয়ের পরিবার সহায়ক ছিল। আমি আশা করি সবার সমর্থন পাবো আমরা দুজনে। যেন জীবনের এই পরীক্ষার সময়গুলি পার করতে পারি।’

‘দয়া করে আমাকে, নাজিয়াকে ও আমাদের পুত্রকে আপনার প্রার্থনায় রাখবেন। সকলকে ধন্যবাদ এবং আল্লাহ আমাদের সকলকে মঙ্গল করুন’- সবশেষে যোগ করেন অপূর্ব। এমন খবর মুহুর্তেই অনলাইনে ভাইরাল হয়ে যায়, এ ব্যপারে এক পাঠক মন্তব্য করতে গিয়ে বলেন , এখনি সময় অপূর্বের পাশে তার সাবেক স্ত্রী প্রভাকে দাঁড়ানোর । তারা চাইলে আবারো সংসার করতে পারবে। ছোট ছোট ভূল গুলো থেকে শিক্ষা নিতে পারবে।

ভিডিওটি দেখুন

প্রসঙ্গত, ২০১১ সালে নাজিয়া হাসান অদিতিকে বিয়ে করেন অপূর্ব। এর আগে এই অভিনেতা ঘর বেঁধেছিলেন আলোচিত অভিনেত্রী সাদিয়া জাহান প্রভার সাথে। কিন্তু অই বছরেই ১৯ আগস্ট বুধবার গাজীপুরের পুবাইলে চয়নিকা চৌধুরীর ‘পালিয়ে বিয়ে’ নাটকের শুটিং শেষে গভীর রাতে অভিনেতা অপূর্বর হাত ধরে প্রভা শুটিং স্পট থেকে বেরিয়ে পড়েন।

পরদিন ভোরে ময়মনসিংহে তারা বিয়ে করেন। অপূর্বর সঙ্গে প্রভার সম্পর্কের ব্যাপারে মিডিয়ায় গুঞ্জন ছিল দীর্ঘদিন। কিন্ত গতবছরই ১৬ এপ্রিল রাজধানীর একটি অভিজাত কমিউনিটি সেন্টারে তরুণ ব্যবসায়ী রাজিব হাসানের সঙ্গে সাদিয়া জাহান প্রভার জাঁকজমকপূর্ণ বাগদান অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে এই গুঞ্জনের অবসান হয়।

অপূর্বর সঙ্গে প্রভার পালিয়ে গিয়ে বিয়ের পর একের পর এক ঘটতে থাকে নাটকীয় সব ঘটনা। প্রথম দিকে অপূর্ব-প্রভার দাম্পত্য জীবন বেশ মধুর-ই ছিল। উত্তরায় অপূর্বর পরিবারিক বাড়িতেই তারা সাজিয়েছিলেন স্বপ্নের সংসার।

কিন্তু বিয়ের সপ্তাহখানেক পর ইন্টারনেটের মাধ্যমে দেশে ও সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে প্রভা ও রাজিবের অন্তরঙ্গ মুহূর্তের আপত্তিকর কিছু ভিডিও ফুটেজ। এ বিষয়টি নিয়েই অপূর্ব-প্রভার দাম্পত্য জীবনে মেঘ নেমে আসে। কারণ প্রভা অপূর্বকে আশ্বস্ত করেছিল যে, রাজিবের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল ঠিকই, কিন্তু অন্তরঙ্গ কোনো সম্পর্ক ছিল না।

এই নিয়ে বাদানুবাদের একপর্যায়ে অপূব আর প্রভার মধ্যে হাতাহাতি পর্যন্ত হয়েছে বলে জানা যায়। পরবর্তীতে প্রভা তার বাবার সঙ্গে যোগাযোগ করে। উত্তরায় অপূর্বর বাসা থেকে প্রভাকে তার বাবা এসে নিজের জিম্মায় নিয়ে যান।

এরপর প্রভার পরিবারের পক্ষ থেকে একাধিকবার এই দম্পতির বিরোধ নিষ্পত্তির উদ্যোগ নেওয়া হলেও অপূর্ব তাতে সাড়া দেন নি।

সবশেষে দুই পরিবারের সম্মতিক্রমেই তাদের মধ্যে আনুষ্ঠানিক বিয়ে বিচ্ছেদ সম্পন্ন হয়েছে গত শুক্রবার রাতে। প্রভার পরিবারের দাবিকৃত কাবিননামায় উল্লেখিত দেনমোহরের দশ লাখ এক টাকা অপূর্ব পরিশোধ করতে হয়েছে।

এই আর্টিক্যালটি নিয়ে পাঠকদের কোন মন্তব্য থাকলে সরিয়ে নেওয়া হবে। কেননা এটি হুবুহু BdToday.net থেকে কপি করা হয়েছে।

নিচের ভিডিওটি মিস করেন নি তো?
লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন