বাবাকে হত্যা করে ৯৯৯–এ ছেলের ফোন

বাবাকে রড দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করে জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯–এ কল দিয়ে জানান বিশ্ববিদ্যালয়পড়ুয়া একমাত্র ছেলে। পরে তাঁকে আটক করে পুলিশ। গতকাল দিবাগত রাতে চাঞ্চল্যকর এ ঘটনা ঘটেছে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার গোসিংগা ইউনিয়নের লতিফপুর গ্রামে।

নিহত আবদুল ওয়াদুদ ওরফে বাবুল মাস্টার (৫৫) পাশের কাপাসিয়া উপজেলার তরগাঁও কোহিনুর বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের গণিত বিষয়ের শিক্ষক ছিলেন। শিক্ষকতার পাশাপাশি তিনি লতিফপুর এলাকার তোতা মার্কেটে ওষুধের ব্যবসা করতেন। দুর্ঘটনায় এক পা হারিয়ে তিনি কৃত্রিম পায়ে চলাফেরা করতেন।

ছেলের নাম ইমরান হাশমি ওরফে রাতুল (২৫)। তিনি ডেফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী। তিনি মা–বাবার একমাত্র ছেলে। তাঁর একটি বোন আছে।

রাতুলের স্বজনেরা জানান, রাতুল ছোটবেলা থেকেই মেধাবী ছিলেন। জেএসসি, এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় খুব ভালো ফল করেছেন। পরে তিনি ডেফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উত্তরা শাখায় ইংরেজি বিভাগে ভর্তি হন। ছেলেকে নিয়ন্ত্রণ করতে অতিরিক্ত টাকা ছেলের হাতে দিতেন না বাবা। ছেলে বেশ কয়েক বছর ধরে বাবার কাছে হাতখরচ ও বন্ধুদের সঙ্গে ভ্রমণের জন্য বাড়তি টাকা চাইতেন। বাবা মাঝেমধ্যে টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে এ নিয়ে দুজনের মধ্যে কথা–কাটাকাটি হতো।

গোসিংগা ইউনিয়ন পরিষদের ৬ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য খোরশেদ আলম প্রথম আলোকে বলে, ‘রাতুল প্রায়ই গভীর রাতে রাস্তাঘাটে চুপচাপ বসে থাকত। মাঝে মাঝে তাঁর বাবা আমাকে ফোন করে বাড়িতে নিয়ে যেতেন। আমি ছেলেকে বুঝিয়ে শুনিয়ে দিয়ে আসতাম। রাতুল মাদকাসক্ত ছিল না। তবে ইচ্ছেমতো টাকা না পেয়ে সে প্রায়ই হতাশ থাকত।’ তিনি আরও বলেন, রাতুল প্রায়ই এসব বিষয় নিয়ে মা-বাবার সঙ্গে ঝগড়া করতেন। তাদের গায়ে হাত তুলতেন। মা তাঁর ছেলের ভয়ে এক বছর ধরে বাবার বাড়িতে গিয়ে থাকেন। বাড়িতে শুধু বাবা আর ছেলে থাকতেন।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) লিয়াকত আলী বলেন, গতকাল সোমবার রাত একটার দিকে ছেলে তাঁর বাবাকে রড দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন। পরে তিনি নিজেই ৯৯৯–এ ফোন দিয়ে বিষয়টি জানান। শ্রীপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ছেলেকে আটক করে। গুরুতর অবস্থায় বাবাকে শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়ার সময় পথে তাঁর মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন।

বিপিএল থেকে ছিটকে গেলেন ‘সাইফুদ্দিন’

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের নির্বাচকরা ভারতে তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজের জন্য ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে। ওই সিরিজের দলে আছেন সাইফউদ্দিন। কিন্তু ভারত সফরের পর বিপিএল থেকেও ছিটকে গেলেন অলরাউন্ডার সাইফুদ্দিন।

তার পিঠের ইজুরিরর স্ক্যান করানো হয়েছিল আজ সেই স্ক্যান রিপোর্ট দেখে সন্তোষজনক না হওয়ায় এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশে ক্রিকেট বোর্ড। তার পরিবর্তে তাসকিন আহমেদ (যদি ইনজুরি থেকে সুস্থ হয়ে উঠতে পারে),আবু হায়দার রনি কিংবা ফরহাদ রেজাকে দলে সুযোগ দেওয়া হতে পারে।

ইনজুরি কতটুকু গুরুতর তা জানতে যে পরীক্ষা দিয়েছিলেন সাইফুদ্দিন। তার রেজাল্ট সুখকর হয় নি সাইফের জন্য। আগামী তিনমাস মাঠের বাহিরে থাকতে হবে ২২ বছর বয়সী সাইফকে। যেহেতু ডিসেম্বর মাসে গড়াবে বিপিএল সেহেতু বিপিএলে সাইফকে পাচ্ছে না কোন দল।

সাইফকে নিয়ে মিনহাজুল আবেদিন বলেন;“আমরা দলের ফিজিও জুলিয়ন ক্যালেফাতোর সঙ্গে কথা বলা হয়েছে এবং সাইফুদ্দিন নিয়ে তাকে একটা ফাইনাল সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। তবে আমি যা বুঝতে পারছি সে ভারতের বিপক্ষে সিরিজে খেলতে পারবে না।”

ভারত সফরের দলে ঘোষণা করলেও বাদ পরতে হবে সাইফুদ্দিনকে। সেজন্যই কোচের সাথে কথা বলে তার বিকল্প খেলোয়াড়ের নাম ঘোষণা হবে বলে জানান; বিসিবি নির্বাচক।

সাইফউদ্দিন ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ থেকেই ইনজুরিতে আছেন। বিশ্বকাপের সময়ও ব্যথানাশক খেয়ে তিনি খেলেছেন। বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে ব্যথা বেড়ে যাওয়ায় তিনি এক ম্যাচ দলের বাইরেও ছিলেন। এখনো আছেন সেই ইনজুরিতে।

গাড়ি থেকে নেমেই পত্রিকা নিয়ে আসার নির্দেশ দিলেন পাপন!

ক্রিকেটারদের ১১ দফা দাবীর প্রেক্ষিতে বিসিবির সভাকক্ষে চলছে বোর্ড পরিচালকদের নিয়ে সভাপতি দর মিটিং। যার মাধ্যমে ক্রিকেটারদের দাবীগুলো পুরন কতটা তবে তার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আসতে পারে।

দুপুর ১২ টায় সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও সেটি শুরু হয় দুপুর ১ টা ১০ মিনিটে। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের দেরিতে ব্যস্ততার কারনেই দেরিতে শুরু হয় সভা।

সভায় যোগদানের পূর্বে ১ টা ৬ মিনিটের দিকে বিসিবি ভবনে আসেন পাপন। গাড়ি থেকে নেমে এসেই তলব করলেন বিসিবি মিডিয়া বিভাগের কর্মীদের। ‘আজকের সব পত্রিকা নিয়ে এস।’ বিসিবির মিডিয়া বিভাগে প্রতিদিনের পত্রিকা বান্ডেল করে রাখা থাকে। সেই বান্ডেল নিয়ে সভাকক্ষে ছুটলেন মিডিয়া কর্মী বুলবুল।

জরুরি বৈঠকে বসছে বিসিবি!

বেতন-ভাতা বৃদ্ধিসহ ১১ দফা দাবি নিয়ে বিসিবিকে আল্টিমেটাম দিয়ে রেখেছে ক্রিকেটাররা। তাদের দাবি মানা না হলে কোন ম্যাচেই খেলতে নামবেন বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন তারা।

এই প্রেক্ষিতে সোমবার রাতেই বেক্সিমকোর ধানমন্ডি কার্যালয়ে বোর্ডের উচ্চ পর্যায়ের সদস্যদের নিয়ে একটা অনানুষ্ঠানিক সভা করেছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। যেখানে বিসিবি বস ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন- জালাল ইউনুস, মাহবুব আনামসহ বোর্ডের কয়েকজন শীর্ষ পরিচালক।

সেই আলোচনায় সিদ্ধান্ত হয়েছে মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) বিকেলে জরুরি আনুষ্ঠানিক সভা হবে। আনুষ্ঠানিক এই সভায় ক্রিকেটারদের দাবির বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করা হবে।

তবে ক্রিকেটাররা বোর্ডের সাথে তাদের দাবিগুলো নিয়ে কোনপ্রকার আলোচনা না করে সরাসরি আল্টিমেটাম দিয়ে দেয়ায় অনেকটা বিস্মিত হয়েছেন বোর্ডকর্তারা। তাদের ধারণা এটা ক্রিকেটকে অস্থিশীল করার একটি ষড়যন্ত্র।

সোমবার বেক্সিমকো কার্যালয়ের বৈঠক শেষে পুরো ঘটনাকে দুঃখজনক আখ্যা দিয়ে বিসিবির মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস বলেন, ‘এটা খুবই দুঃখজনক। আমরা বিস্মিত, হতবাক। ক্রিকেটাররা যে দাবিগুলো উত্থাপন করেছে, তা এমন কিছু নয় যে সমাধান করা যাবে না বা সমাধান নেই। সেগুলো অবশ্যই সমাধানযোগ্য। এসব দাবি নিয়ে বোর্ডের সাথে আন্তরিকতাপূর্ণ সংলাপ হতেই পারতো। আলোচনায় বসে এসব দাবি উত্থাপন করলে নিশ্চয়ই সমাধানের পথ বেরিয়ে যেত।’

মিসরে ৩ হাজার বছর পুরোনো ৩০টি মমি উদ্ধার!
মিসরের দক্ষিণাঞ্চলীয় লুক্সোর শহরে মমিসহ প্রাচীন ৩০টি কাঠের কফিন উদ্ধার করা হয়েছে। কমপক্ষে ৩ হাজার বছর আগের কফিনগুলোর ভেতর আছে নারী, পুরুষ ও শিশুদের মমি। গত এক শতাব্দীর মধ্যে একসঙ্গে সবচেয়ে বেশি কাঠের কফিন উদ্ধারের ঘটনা এটি।

দেশটির প্রত্নতত্ত্ব বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের বিবৃতির বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম সিএনএন এক প্রতিবেদনে জানায়, লুক্সোরের পশ্চিম তীরে আল আসাসিফ সমাধিক্ষেত্রে একসঙ্গে পাওয়া গেছে এসব কফিন। ওই এলাকাটি ঐতিহাসিক নীল নদের পশ্চিম তীরে অবস্থিত।

কফিনে পাওয়া মমিগুলো এখনো অক্ষত অবস্থায় আছে। এমন কি এর গায়ে যে অলঙ্করণ রয়েছে, যে নকশা আঁকা রয়েছে, তা বিন্দুমাত্র বিলীন হয়নি।

যেহেতু কফিনগুলো একই স্থানে পাশাপাশি রাখা ছিল। তাই মিসরের প্রত্নতত্ত্ব বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ভাষ্যমতে, এটা কোনো উচ্চ পর্যায়ের ধর্মগুরুর পরিবারের সদস্যদের কফিন বা মমি হতে পারে।

বিবৃতিতে আরো জানানো হয়েছে, কফিনগুলো তিন হাজার বছরের পুরোনো বলে মনে করা হচ্ছে।

মিশরের প্রত্নতত্ত্ব বিষয়ক সুপ্রিম কাউন্সিলের প্রধান মোস্তফা আল ওয়াজিরি বলেছেন, মিশরের প্রত্নতত্ত্ববিদ, রক্ষণশীল ও কর্মীদের সমন্বয়ে উৎসর্গিত ব্যক্তিদের একান্ত প্রচেষ্টায় আসাসিফ এলাকায় প্রথম এমন উদঘাটন হলো। এসব কফিনের গায়ে যে তারিখের উল্লেখ আছে তাতে তা ২২তম ফারাওনিক রাজবংশের। এই রাজবংশের সূচনা হয়েছিল খ্রিস্টপূর্ব ১০ম শতাব্দীতে।

লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন